পান ও কালোজিরার উপকারিতা

পান ও কালোজিরার উপকারিতা নিচে আলোচনা করা হয়েছে।

পান: পান আমরা সকলেই চিনি। সাধারণত, বয়স্ক লোকেরা পান খেয়ে থাকে। গ্রাম বাংলায় পান অতিথি আপ্যায়নে বিশেষ ভূমিকা রাখে। শহরের মানুষও প্রচুর পান খায়। পান আমাদের জন্য খুবি উপকারি। পানে প্রচুর পরিমাণ ক্লোরোফিল থাকে যা শরীরের জন্য উপকারী৷ পানের রস আমাদের শরীরে ওষুধের মত কাজ করে৷ পান বিভিন্ন প্রকারের হয় যেমন- মালবী, মিঠা পাতি, মাদ্রাসি, কর্পুরী ও বেনারসী প্রভৃতি৷ যাইহোক আ্জ আমরা পানের উপকারিতা সম্পর্কে জানব।

পানের উপকারিতা:

  1. ক্ষত নিরাময় করে।
  2. পাচন শক্তি বৃদ্ধি করে।
  3. হৃদস্পন্দন নিয়ন্ত্রন করে।
  4. গলার স্বর পরিস্কার করে৷
  5. ওজন কমাতে সাহায্য করে।
  6. বিষণ্নতা কমাতে সাহায্য করে।
  7. রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।
  8. ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাজ করে।
  9. পেট পরিষ্কার করতে সাহায্য করে৷
  10. মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে৷
  11. রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রন করতে সাহায্য করে৷
  12. মুখের স্বাদ ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে৷
  13. গলার সমস্যার জন্য পান খুবই উপকারী৷
  14. অ্যাজমা অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমাতে সাহায্য করে।
এছাড়াও
  1. পানের সাথে লবঙ্গ এবং গোলমরিচ মিশিয়ে খেলে কাশি কমে যায়৷
  2. পানের পাতা বেটে মাথার ত্বকে লাগালে খুশকি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  3. ২-১ ফোঁটা গরম পানের রস কানে দিলে কানের পুঁজ কমে যায়।
  4. পানের রসের সাথে মধু মিস্ক করে খেলে সর্দি কাশিতে উপকার পাওয়া যায়৷
  5. মাথাব্যথায় ২ - ৩ ফোঁটা পানের রস নাকে দিলে উপশম পাওয়া যায়৷
  6. পানের রস গরম করে তাতে সরিষার তেল মিশিয়ে বুকে মালিশ করলে শিশুর কফ ও শ্বাসকষ্ট দূর হয়।
  7. পানের রসের সাথে পানি মিশিয়ে কুলকুচি করলে মাড়ির দূষিত পুঁজ বা ক্ষত থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  8. মুখে ঘা হলে, পানের সাথে কর্পুর মিশিয়ে মূখে নিয়ে চিবিয়ে বার বার পিক ফেলে দিলে উপকার পাওয়া যায়৷

কালোজিরা: আমরা সকলেই কালোজিরা চিনে থাকব এটি রান্নার ফোরন হিসেবেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে। নিমকি বা তেলে ভাজা খাবারের ভিন্নধর্মী স্বাদ আনতে কালোজিরা ব্যবহার করা হয়।কালজিরার ভর্তা খেতে অনেকেই পছন্দ করেন কিন্তু আবার অনেকেই কালোজিরা খেতে পছন্দ করেন না। তবে, খাবারে ভিন্নধর্মী স্বাদ আনাতেই কালোজিরার ব্যবহার সীমাবদ্ধ নয়। কবিরাজি ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসাতেও কালোজিরার ব্যবহার হয়ে থাকে।

ইবনে সিনা (মুসলিম চিকিৎসা বিজ্ঞানী) তার বিখ্যাত "ক্যানন অব মেডিসিন" গ্রন্থে বলেছেন, "কালোজিরা শরীরের ক্লান্তি দূর করে এবং প্রাণশক্তি বাড়ায়।" কালোজিরায় রয়েছে প্রায় একশত পুষ্টিগুণ।

প্রতি গ্রাম কালজিরায় রয়েছে:

  1. প্রোটিন- ২০৮ মাইক্রোগ্রাম
  2. ফোলাসিন- ৬১০ আইউ
  3. আয়রণ- ১০৫ মাইক্রোগ্রাম
  4. জিংক- ৬০ মাইক্রোগ্রাম
  5. নিয়াসিন- ৫৭ মাইক্রোগ্রাম
  6. কপার- ১৮ মাইক্রোগ্রাম
  7. ফসফরাস- ৫.২৬ মিলিগ্রাম
  8. ক্যালসিয়াম- ১.৮৫ মাইক্রোগ্রাম
  9. ভিটামিন বি- ১.১৫ মাইক্রোগ্রাম
  10. শর্করা ৩৮ শতাংশ।
  11. ভেষজ তেল বা স্নেহ এবং চর্বি ৩৫ শতাংশ।
  12. এছাড়াও কালোজিরায় বেশ কিছু ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ রয়েছে।

কালোজিরার উপকারিতা:

  1. এতে ১০০ টিরও বেশি পুষ্টি এবং উপকারী উপাদান রয়েছে।
  2. আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  3. কালিজিরা ফুলের মধুকে বিশ্বব্যাপী সেরা মধু হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং এর তেল আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী।
  4. কালিজিরায় প্রস্রাব জনিত রোগ প্রতিরোধকারী উপাদান রয়েছে এবং এটি নারীদের বিভিন্ন রোগ ও সমস্যার জন্য দারুণ ওষুধ।
  5. কালোজিরা ভর্তা মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধির জন্য খুবি উপকারী।
  6. অম্লনাশক উপাদান, পাচক এনজাইম এবং অম্লরোগের প্রতিষেধক হিসাবে কাজ করে কালোজিরা।
  7. ইউনানি, কবিরাজি, আয়ুর্বেদিক এবং লোকজ চিকিৎসায় কালিজিরা ব্যবহার করা হয়।
  8. উদরাময়, সর্দি, জ্বর, কাশি, খাবারে অরুচি, গলা ব্যথা, শরীর ব্যথা, দাঁতের ব্যথা, পেটের বাথা, বাতের ব্যথা, মাথা ব্যথা বা মাথা ঝিমঝিম করা ও মাইগ্রেন নিরাময়ে খুবি উপকারী।
  9. এজমা, এলার্জি, হাঁপানি বা শ্বাসকষ্ট, ব্রঙ্কাইটিস, খোসপাঁচড়া, চামড়ার ফুসকুরি, একজিমা, পেটফাঁফা, ডায়রিয়া, অর্শরোগ, গ্যাসট্রিক আলসার, আমাশয়, জন্ডিস, ছুলি বা শ্বেতি ও দাদে কার্যকরি ওষুধ হিসেবে কাজ করে কালিজিরা।
  10. স্নায়বিক উত্তেজনা, স্ট্রোক, বুকের প্রদাহ, স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে, আঁচিল, শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমাতে ও স্থূলতার চিকিৎসায় কালিজিরা দারুণ কাজ করে।
  11. বহুমূত্র বা ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তের শর্করা কমিয়ে ইনসুলিন সমন্বয় করে বা ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রণ রাখতে সাহায্য করে।
  12. হাইপারটেনশন, হার্টের সমস্যা, নিম্ন রক্তচাপক বা উচ্চ রক্তচাপক নিয়ন্ত্রণ করে।
  13. পেটের কৃমি দূর করতে এবং পেটের সকল রোগ-জীবাণু, গ্যাস দূর করে সাহায্য করে।
  14. কালোজিরার তেল ব্যবহার করলে অনিদ্রা দূর হয়।
  15. এতে রয়েছে শক্তিশালী হরমোন। এছাড়াও রয়েছে ক্যান্সার প্রতিরোধক ক্যারোটিন।
এককথায় বলতে গেলে মৃত্যু ছাড়া সব রোগের মহাঔষধ হল কালোজিরা।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url