Advertisements

Make A Best CV Now



আমরা CV লেখার সময় Present Address লেখার প্র্তি তেমন গুরত্ব দেইনা। অথচ ৫০% এর বেশি জবে Address কে গুরত্ব দেয়া হয়।

কোনো নতুন কম্পানি বা ছোটখাটো কম্পানিগুলো অল্প বেতনে লোক নিয়োগ দিতে চায়। ৬0% Fresher দের Carrier এখান থেকেই শুরু হয়। ধরুন এমন একটি কম্পানি Dhaka Farmgate এ নিয়োগ দেবে। এখন উক্ত সার্কুলারে রাজশাহীতে অবস্থানরত কোনো ছাত্র Apply করেছে। কিন্তু উক্ত ছাত্রকে Interview এও ডাকলোনা। অথচ এই ছাত্রটিই অন্যসব ছাত্রদের চেয়ে বেশি Smart & Inteligent ছিল। তাহলে কেন ডাকলোনা? মামা-খালুর জোরে অন্য কেউ চাকরি নিয়ে-নিয়েছেকি?
প্রকৃতপক্ষে, ছাত্রটির চাকরি না হওয়ার কারণ হলো, তার CV তে Present Address ছিল Rajshahi. চলুন একটু বুঝিয়ে বলি। কম্পানিটি চিন্তা করেছিল, তারা বেতন দেবে ৮ হাজার। তারা চিন্তা করেছিল রাজশাহীর ছেলেটিকে নিয়োগ দিলে, ছাত্রটির ঢাকায় এসে থাকা খাওয়াসহ যাবতীয় খরচ মেটাবে বেতন থেকে, মাসশেষে যখন ছাত্রটির হাতে কোনো টাকা থাকবেনা তখন সে চাকরিটা আর পছন্দ করবেনা অন্য কোথাও পালাবে। অথচ খুলনার ছাত্রটির কম যোগ্যতা হলেও, নিয়োগ দিয়েছে। কারণ কম্পানি চিন্তা করেছে খুলনার ছাত্রটি বর্তমানে ঢাকায়/ গাজিপুর অবস্থান করছে। কোনোনা কোনোভাবে তার খরচ চলছে। একে নিয়োগ দিলে, আশাকরাযায় সে অল্প বেতনের জন্য দুস্চিন্তা করবেনা এবং অভিজ্ঙতা অর্জনের আশায় বেশকিছুদিন থাকবে।
অতএব, Adress লেখার সময় Job Place এর নিকটবর্তি স্থানের নাম দেয়াই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে উত্তম।(বি.দ্র.: কম্পানিতো আর দেখতে আসবেনা, আসলে আপনি কোথায় আছেন। আর তাছাড়া Job হলেতো নিশ্চই কম্পানির আশেপাশেই থাকবেন।)

Career Objective এবং Career Summary তেমন একটা গুরত্ত বহন করেনা। Career Objective এ এমন কিছু লিখুন যা দ্বারা আপনি কম্পানিকে বোঝাবেন যে, আপনি আপনার সততা ও পরিশ্রম দিয়ে সর্বচ্চ Output দেয়ার চেষ্টা করবেন।

CV তে Experience অংশোর গুরত্বের পরেই Special Qualification এর গুরত্ব। যাদের Experience নেই তাদের জন্য সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ অংশ হলো Special Qualification তাই ভেবেচিন্তে সময় নিয়ে এই অংশটা লিখতে হবে।এজন্য আগে বুঝতে হবে circuler এ কি চেয়েছে, কোন কোন কাজ জানা লাগবে, যেই পদে নিয়োগ দেবে সেই পদে কাজ করার জন্য কিকি যোগ্যতা থাকার দরকার। এই যোগ্যতাগুলিই ফুটিয়ে তুলুন এই অংশে।



আজকাল নামি-বেনামি, দামি-বেদামি সব সার্কুলারেই চাওয়া হয় অভিঙ্গতা। নতুনদের জন্য মহা সমস্যার বিষয় এটা। কিন্তু নতুনেরাও অভিঙ্গতা লিখতে পারে। প্রয়োজন শুধু একটু টেকনিক আর বুদ্ধি। যেমন ধরুন আমার প্রথম সময়ের কথা। কোনো অভিঙ্গতা বা রেফারেন্স নেই। কিন্তু আমার প্রথম সার্কুলারে কিছু অভিঙ্গতা যুক্ত করেছিলাম। কিভাবে যুক্ত করেছিলাম নিচের ফটেটা দেখুন।

Experience হিসাবে কি যুক্ত করেছি দেখতেই পারছেন। আপনি যেই ধরণের কম্পানি বা প্রতিষ্ঠানে Apply করছেন তার কাজের সাথে সম্পৃক্ত কাজকে Experience হিসাবে যুক্ত করুন। তবে যে কাজ আপনি জানেননা সেই কাজকে Experience হিসাবে ব্যাবহার করবেননা। কেননা আপনার Experience দেখে নিয়োগ দেয়ার পর যদি আপনি সেই কাজ করতে না পারেন, তবে চাকরিতো হারাবেনই সাথে অপমানো হতে হবে। আর তাছাড়া Interview এর দিনেই সরাসরি কাজ দেখতে চাইতে পারে, এছাড়া  অভিঙ্গতার প্রমাণস্বরূপ document চাইতে পারে। এই নকল Experience document এর জন্য কি করবেন সে ব্যাপারে অন্যদিন লিখবো।
জবের সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোনো Training যুক্ত করবেননা।

আপনি কোন কোন কাজে দারুন expert সেই কাজগুলো পয়েন্ট আকেরে তুলে ধরুন Specialization এ্। সবজান্তা সমসেরের ন্যায় সব কিছু তুলে ধরবেননা। যেই জবে Apply করবেন সেই জবের সাথে Related গুলি লিখবেন।
Personal Details এ কোনো উল্টাপাল্টা করবেননা। National ID এর সাথে মিল রেখে লিখবেন।

Reference এ আপনার পলিটেকনিক/ ট্রেনিং সেন্টারের প্রধানের নাম দিতে পারেন। সবচেয়ে বেশি ভাল হয় যদি পূর্ববর্তি কম্পানির(Experience) বসের নাম দিতে পারেন(আপনার বস)
নিচের link থেকে আমার CV টা download করে অপ্রয়োজনিয় space remove+edit করে নিতে পারেন


Home